ঢাকারবিবার , ৭ আগস্ট ২০২২
  1. অর্থনীতি
  2. আইন-আদালত
  3. আন্তর্জাতিক
  4. খেলা
  5. জাতীয়
  6. তথ্যপ্রযুক্তি
  7. ধর্ম
  8. ফিচার
  9. বিনোদন
  10. রাজনীতি
  11. লাইফস্টাইল
  12. শিক্ষাঙ্গন
  13. সারাদেশ
  14. স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মোংলায় মন্দিরে প্রতিমা ভাংচুর, জিঞ্জাসাবাদে ৩ জন পুলিশ হেফাজতে

মোংলা প্রতিনিধি
আগস্ট ৭, ২০২২ ২:০৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

মোংলা প্রতিনিধি।।মোংলায় একটি মন্দিরের প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় তিনজন কে জিঞ্জাসা বাদের জন্য নেয়া হয়েছে পুলিশ হেফাজতে।

মন্দিরের সামনের মাঠে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে শনিবারের হট্টগোল থেকে এ ঘটনা ঘটতে পারে এমন ধারনা পুলিশের।

স্থানীয়রা জানায়, শনিবার(৬ আগষ্ট) দিবাগত গভীর রাতে মোংলা উপজেলার চাঁদপাই ইউনিয়নের কানাইনগর সার্বজনীন মন্দিরে থাকা দুইটি প্রতিমার অঙ্গপ্রত্যঙ্গের আংশিক ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।

তবে মন্দির মাঠে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে বিরোধের জেরে এ ঘটনা ঘটে।

ওই মন্দিরটির সামনের মাঠে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে মন্দির সংশ্লিষ্ট লোকজনের সাথে খেলতে আসা শিশু কিশোরদের মধ্যে বাকবিতন্ডায় হয়ে আসছিলো কয়েকদিন ধরেই। মন্দির কমিটির লোকজন মন্দিরের সামনের মাঠে ফুটবল খেলতে নিষেধ করে এলাকার ছেলেদেরকে।

শনিবার বিকেল ৪টার দিকে স্থানীয় ছেলেরা ওই মাঠে খেলতে গেলে তাদের উপর চড়াও হয় মন্দির সংশ্লিষ্টরা। এনিয়ে সেখানে অনেক উচ্চবাক্য ও বাকবিতণ্ডা হয়। এ সময় উভয়পক্ষই একে অপরকে হুমকি ধামকি দেন। পরে খেলতে আসা ছেলেরা সেখান থেকে চলে যায়। এরপর গত গভীর রাতে ওই মন্দিরটিতে থাকা কালি ও গণেশ মূর্তির অঙ্গ প্রত্যঙ্গের আংশিক অংশ ভাংচুর হয়েছে।

উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি পিযুষ মজুমদার বলেন, শুনেছি শনিবার বিকেলে কানাই নগর মন্দিরের সামনের মাঠে ফুটবল খেলা নিয়ে মন্দির কমিটি ও খেলাতে আসা ছেলেদের মাঝে ঝগড়াঝাটি হয়েছিলো। সেই কারণে কিংবা অন্য কারণেও এ প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। এ এলাকায় এমন ঘটনা এই প্রথম বলেও জানান তিনি।

মোংলা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে রবিবার সকালে ঘটনা স্থল পরিদর্শন করা হয়েছে।

এ সময় ঘটনাস্থল পরিদর্শনে ছিলেন মোংলা-রামপাল সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ আসিফ ইকবালও।

ওসি মনিরুল আরো বলেন, মন্দিরের সামনের মাঠে ফুটবল খেলতে নিষেধ করলে শনিবার বিকেলে দুইপক্ষ বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। খেলতে গিয়ে বাকবিতন্ডায় জড়ানো তিনজনকে জিজ্ঞেসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে।

তারা হলেন কানাইনগর গ্রামের শহিদ চৌধুরীর ছেলে রাহাত চৌধুরী (২০), মৃত হাবিব মুন্সীর ছেলে নয়ন মল্লিক (২৪) ও জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে আসিফ খান (২২) ।

প্রতিমা ভাংচুরের বিষয়টি তাদের জিঞ্জাসাবাদ করা হচ্ছে। তাছাড়া অন্য কোন কারণ থাকতে পারে কিনা তা নিয়েও পুলিশের অনুসন্ধান চলছে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।