দশমীতে দেবীর সিঁদুর-রাঙা বিদায়

Admin

অক্টোবর ১৫ ২০২১, ০৬:৩৮

কৈলাসের দেবালয়ে ফিরে যাচ্ছেন মহিষাসুরমর্দ্দিনী। মর্ত্যে ‘বাবার বাড়ি’ বেড়ানো শেষ দেবী দুর্গার। আবার ফিরবেন আগামী বছর। ষষ্ঠী তিথিতে দেবী বন্দনা দিয়ে যে উৎসবের সূচনা করেছিল মর্ত্যের সন্তানরা, বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনে মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে সেই উৎসব।

শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘটবে আজ। এদিন সকালে দর্পণ-বিসর্জনের মাধ্যমে বিদায় জানানো হবে দেবী দুর্গাকে। এরপর বিকেল ৪টা থেকে শুরু হবে প্রতিমা বিসর্জন।

করোনার মহামারির কারণে এবছরও বিজয়ার শোভাযাত্রা হবে না। তাই পূজার সব আনুষ্ঠানিকতা শেষে প্রতিমা বিসর্জন করা হবে। তবে শুক্রবার জুমার নামাজ থাকায় দুপুরে বিসর্জন অনুষ্ঠান করা হবে না। বিকাল ৪টা থেকে শুরু হবে প্রতিমা বিসর্জন।

বৃহস্পতিবার দেশের প্রতিটি মণ্ডপ ও মন্দিরে ঢাক-ঢোল, ধূপ আরতি ও দেবী-দুর্গার পূজা-অর্চনায় কেবলই ছিল বিদায়ের সুর। সারাবিশ্বের কল্যাণ এবং করোনামুক্ত বিশ্ব কামনা করে বিশেষ প্রার্থনা করা হয় প্রতিটি মণ্ডপ।

পুরাণ মতে, রাজা সুরথ প্রথম দেবী দুর্গার আরাধনা শুরু করেন। বসন্তে তিনি পূজার আয়োজন করায় দেবীর এ পূজাকে বাসন্তী পূজা বলা হয়। কিন্তু রাবণের হাত থেকে সীতাকে উদ্ধার করতে লংকা যাত্রার আগে শ্রী রামচন্দ্র দেবীর পূজার আয়োজন করেছিলেন শরৎকালের অমাবস্যা তিথিতে, যা শারদীয় দুর্গোৎসব নামে পরিচিত। দেবীর শরৎকালের পূজাকে এজন্যই সনাতন মতে অকাল বোধনও বলা হয়।

এবার দেশজুড়ে প্রায় ৩২ হাজার ১১৭ মণ্ডপে দুর্গাপূজার আয়োজন করা হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এক হাজার ৯০৫টি মণ্ডপ বেড়েছে। ঢাকায় এ বছর দুর্গ পূজা হয়েছে ২৩৮টি মণ্ডপে।

উল্লেখ্য, কুমিল্লা নগরীর নানুয়ার দীঘির উত্তরপাড় পূজামণ্ডপে সাম্প্রদায়িক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির ঘটনার জেরে, জেলা প্রশাসনের চাহিদার প্রেক্ষিতে ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অনুযায়ী নিরাপত্তা রক্ষার স্বার্থে দেশের ২২টি জেলায় বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। এসব জেলার মধ্যে রয়েছে কুমিল্লা, ঢাকা বিভাগের নরসিংদী ও মুন্সীগঞ্জ।