রিং আইডির ৭ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যশোরে মামলা

Admin

অক্টোবর ০৩ ২০২১, ১২:৫৮

বেত্রাবতী ডেস্ক।।অনলাইনভিত্তিক এমএলএম প্রতিষ্ঠান রিং আইডির সাত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যশোরে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ আত্মসাতের মামলা হয়েছে।

কোতোয়ালি মডেল থানায় শনিবার এই মামলাটি দায়ের করেছেন ঝিকরগাছা উপজেলার দিকদানা গ্রামের শিমুল কুমার বিশ্বাস।

মামলার আসামিরা হলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার কালাই নগর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের দুই ছেলে শরিফুল ইসলাম ও সাইফুল ইসলাম, আমিনুল ইসলামের মেয়ে আইরিন ইসলাম, সিলেট সদর উপজেলার ওয়াপদা গ্রামের ইউসুফ আলীর ছেলে সালাহ উদ্দিন, চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার ডুমুরিয়া গ্রামের আবুল বাসারের ছেলে আহসান হাবিব, পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার কাশিনাথপুর গ্রামের মনির উদ্দিন শেখের ছেলে রফিকুল ইসলাম এবং হবিগঞ্জ জেলা শহরের ৪ নম্বর পৌর ওয়ার্ডের সাজিদ মিয়ার ছেলে নাজমুল হোসেন। আসামিরা সবাই ঢাকার ধানমন্ডির রিং আইডির কার্যালয়ে চাকরি করেন।

বিজ্ঞাপনে রিং আইডি বলেছে, প্রতিদিন একশ’টি বিজ্ঞাপন দেখলে পাঁচশ’ টাকা করে দেয়া হবে। এর জন্য অনলাইনে রিং আইডি নিতে হবে, দিতে হবে ১৮ হাজার পাঁচশ’ টাকা।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ মার্চ বিকেলে যশোর শহরের আরবপুর বাজারে বন্ধুদের সঙ্গে বাদী শিমুল কুমার বিশ্বাস আড্ডা দিচ্ছিলেন। এ সময় মোবাইলের স্ক্রিনে আসামি রফিকুল ইসলামের ১১৭৭৯০৪৪ নম্বর রিং আইডি থেকে পাঠানো একটি বিজ্ঞাপন দেখতে পান। ওই বিজ্ঞাপনে বলা হয়, প্রতিদিন একশ’টি বিজ্ঞাপন দেখলে পাঁচশ’ টাকা করে দেয়া হবে। এর জন্য ১৮ হাজার পাঁচশ’ টাকা দিয়ে একটা অনলাইনে রিং আইডি নিতে হবে।

বাদী প্রলোভনে পড়ে উল্লিখিত টাকা জমা দিয়ে ভার্চ্যুয়াল সদস্যপদে একটি রিং আইডি ওয়ালেট নেন। সাড়ে তিন লাখ টাকা দিয়ে এভাবে ১৬টি আইডি নেন তিনি। সপ্তাহে একবার ওয়ালেট থেকে ওই টাকা উত্তোলন করা যাবে উল্লেখ করা হলেও এ পর্যন্ত বাদী শিমুল কুমার বিশ্বাস কোনো টাকা তুলতে পারেননি বলে মামলায় উল্লেখ করেছেন।

বিষয়টি নিয়ে শিমুল রিং আইডি অফিসে যোগাযোগ করলে নানা অজুহাত দেখানো হয় তাকে। অফিস থেকে তাকে বলা হয়, এখন সমস্যা আছে, পরে টাকা উত্তোলন করা যাবে। ফলে, কোনো টাকা উত্তোলন করতে না পেরে মামলা দায়ের করেছেন বলে এজাহারে উল্লেখ করেছেন শিমুল কুমার বিশ্বাস।

যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি তাজুল ইসলাম মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, রিং আইডির সাতজনের নাম উল্লেখ করে এ মামলা করা হয়েছে।

এতে অজ্ঞাতনামা আরও ১২-১৩ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।