জয়াময় দুই বাংলা

Admin

সেপ্টেম্বর ২৩ ২০২১, ০৭:০০

নামটি শুনলেই চোখে ভেসে ওঠে অনিন্দ্য সুন্দরী এক নারীর প্রতিচ্ছবি।

ভৌগোলিক সীমানা পেরিয়ে তার রূপের রশ্মিতে মগ্ন করেছেন বিশ্ববাসীকে। শুধু রূপেই নয়, গুণেও মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন তিনি। যার রূপে আকৃষ্ট হয়েছিলেন সে সময়ের রাজা-বাদশারা। বলছি, মিসরের প্রভাবশালী ও সুন্দরী রানী ক্লিওপেট্রার কথা।

শুরুতে ক্লিওপেট্রার কথা বলার একটা বিশেষ কারণ আছে। আমাদের দেশেরও একজন অভিনেত্রী, যার রূপের সৌন্দর্য ও অভিনয় দক্ষতা ভৌগোলিক সীমানা ছাড়িয়ে জয় করেছেন দুই বাংলা। যার জন্য এত কথা, এত উপমা, তিনি আর কেউ নন- চারবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী অভিনেত্রী জয়া আহসান।

জয়া আহসানের প্রাপ্তির হালখাতা মুগ্ধতায় পরিপূর্ণ। রংধনুর সাত রং যেমন থরে থরে সাজানো, তেমনি এই অভিনেত্রীর ক্যায়িরারও গোছানো। অনন্য নিপুণ অভিনয় দক্ষতায় এই বাংলা কাঁপিয়ে যিনি ওপার বাংলায়ও তারকা খ্যাতি পেয়েছেন। তার ক্যারিয়ারে বাধা হতে পারেনি কাঁটাতারের বেড়া।

দেশে চারবার সেরা অভিনেত্রী হওয়ার পর পশ্চিমবঙ্গেরও এ সময়ের সেরা অভিনেত্রী মধ্যে তিনি অন্যতম। তিনি এখন দুই বাংলার। দুই বাংলা এখন জয়াময়।

সমানতালে দুই বাংলাতেই অভিনয় করে যাচ্ছেন তিনি। করোনা মহামারির আগে সকালে ঢাকায় শুটিংয়ে আবার বিকেলেই কলকাতার কোনো অনুষ্ঠানে।

এভাবেই অভিনেত্রীর দিনকাল। করোনা সেই চিত্র পাল্টে দিয়েছে। তবে বসে থাকেননি এই অভিনেত্রী। মেঘের পালে ভর করে দূর-দিগন্তে ছুটে চলেছেন তিনি।

গত ২০ আগস্ট করোনার ঝুঁকি নিয়েই কলকাতার প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে দুই বাংলার নন্দিত অভিনেত্রী জয়া আহসান অভিনীত অতনু ঘোষ পরিচালিত সিনেমা ‘বিনিসুতোয়’।

এই সিনেমার জন্য জয়া কণ্ঠে তুলেছিলেন ‘সুখের মাঝে’ শিরোনামের শীর্ষক রবীন্দ্রসঙ্গীত।

এ গান কণ্ঠে তোলার পর ভূয়সী প্রশংসা করেন কলকাতার সুরকার দেবজ্যোতি। এবার জয়ার গাওয়া গানটি ইউটিউবে মুক্তি পেয়েছে। তারপর থেকে জয়ার গায়কীর জয়জয়কার।

গৌরব বিশ্বাস নামের একজন লিখেছেন, ‘কী সুন্দর মোহের আবেশ তৈরি করলো জয়ার কণ্ঠে রবীন্দ্রসংগীতটি। মোহাচ্ছন্ন হয়ে শুনলাম গানটি। আহা! কি কণ্ঠস্বর।’ গৌতম চক্রবর্তী লিখেছেন, ‘অপূর্ব। বাংলাদেশের শিল্পীদের কণ্ঠে রবীন্দ্রনাথ বড় সুন্দর করে ধরা দেয়।’

সিনেমাটি মুক্তির পর থেকে জয়ার অভিনয় ও গান টলিমহলে বেশ সাড়া ফেলেছে। সিনেমাটি দেখার পর মুগ্ধতা প্রকাশ করেছেন অনেকেই।

এদিকে, বাংলাদেশ-কলকাতা জয় করে বলিউডেও কাজ করতে চলেছেন জয়া। ভারতীয় পরিচালক সায়ন্তন মুখোপাধ্যায় নির্মিত রাজনৈতিক কাহিনী-নির্ভর ইতিহাসভিত্তিক ওয়েব সিরিজে বলিউডের নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীর সঙ্গে বাংলাদেশি অভিনেত্রী জয়া আহসান অভিনয় করবেন বলে শোনা যাচ্ছে।

এই ওয়েব সিরিজে বিপ্লবী চারু মজুমদারের স্ত্রী লীলা মজুমদারের চরিত্রে দেখা যাবে তাকে।

বর্তমানে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে জয়ার ‘বিউটি সার্কাস’ সিনেমাটি। এটি হতে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী সার্কাস শিল্প নিয়ে নির্মিত প্রথম পূর্ণাঙ্গ চলচ্চিত্র। ২০১৪-১৫ অর্থবছরে সরকারি অনুদান পায় এটি। ২০১৬ সালে ফেব্রুয়ারিতে শুরু হয় শুটিং। গত নভেম্বরে শেষ হয়েছে দৃশ্যধারণ। মাহমুদ দিদার পরিচালিত সিনেমাটির মাধ্যমে বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে প্রথম সার্কাস কর্মীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন জয়া।

জয়া আহসানের অভিনয় শুরুর আগে নাচ ও গানের প্রতি আকৃষ্ট ছিলেন। ছবি আঁকাও শিখেছিলেন প্রাতিষ্ঠানিকভাবে। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের আগে ছোট পর্দায় নিয়মিত ছিলেন তিনি।

তবে চলচ্চিত্রে অভিষেক হওয়ার পর ধীরে ধীরে ছোট পর্দার কাজ থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেন জয়া। বর্তমানে চলচ্চিত্রের কাজ নিয়েই ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি।

২০০৪ সালে মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘ব্যাচেলর’ সিনেমার মাধ্যমে জয়ার অভিষেক হয়। এরপর দীর্ঘ ছয় বছর পর নুরুল আলম আতিক পরিচালিত ‘ডুবসাঁতার’ চলচ্চিত্রে দেখা যায় তাকে। এরপরের গল্পটা শুধু এগিয়ে যাওয়া।

আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি এই অভিনেত্রীকে। তার ঝুলিতে রয়েছে চারটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, দুটি বাচসাস পুরস্কার, সাতটি মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার ও দুটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার ছাড়াও দেশি-বিদেশি অসংখ্য পুরস্কার।